আমাদের তথ্য বাতায়নে আপনাকে স্বাগতম

আমরা অশেষ কৃতজ্ঞ যে, আপনারা আপনাদের সন্তানদের সুশিক্ষার গুরুদায়িত্ব আমাদের উপর অর্পণ করেছেন। শিক্ষাই জাতির মেরুদন্ড। জাতির অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখতে শিক্ষার কোন বিকল্প নেই। শিক্ষা ব্যতিরেকে কোন জাতি আজ‌ পর্যন্ত উন্নতি লাভ করতে পারেনি। পূর্ববতী মানব সমাজের ধ্যান – ধারণা , অভিজ্ঞতা ও অজির্ত জ্ঞান পরবর্তী সমাজে সঞালন করার কাজটি শিক্ষার মাধ্যমেই হয়ে থাকে। তাই মানব সম্পদ উন্নয়নে শিক্ষার ভূমিকা অপরিহার্য ।সবার জন্য শিক্ষা এই জাতীয় লক্ষ্য অর্জনে বাংলাদেশ মহিলা সমিতি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ আনুষ্ঠানিক শিক্ষাদান কাজে নিয়োজিত রয়েছে। বাহ্যিক চাকচিক্য বিহীন ঐতিহ্যবাহী এ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার একটি যথোপযুক্ত পরিবেশ রয়েছে বলে আমাদের বিশ্বাস। সকল পাবলিক পরীক্ষায় প্রতিষ্ঠানটি চমকপ্রদ ফলাফলের পাশাপাশি প্রতি বছরই প্রতিযোগিতামূলক ভতি পরীক্ষার পাশাপাশি সহপাঠক্রমিক শিক্ষা লাভ করতে পারছে । বিদ্যালয়ে সাধারণ শিক্ষার পাশাপাশি বৃত্তিমূলক বা কর্মমূখী শিক্ষাও রয়েছে।শিক্ষা একটি ত্রিমেরুবিশিষ্ট প্রক্রিয়া ও জীবন বিকাশের মুখ্য হাতিয়ার। শিক্ষার্থী – শিক্ষক – অভিভাবক এ ত্রিবিধ সম্পর্কের সঠিক সমনবয়ে একজন শিক্ষার্থীর সুসহ প্রতিভার ও জীবনের পরিপূর্ণতা আসে। শিক্ষাথীর সর্বাঙ্গীন উন্নতিকল্পে বছরের প্রথম থেকে যে সকল কার্যক্রম ও উন্নয়নমুখী পরিকল্পনা গ্রহন করা হয় তন্মধ্যে দিনপঞ্জি প্রকাশনা অন্যতম। ইহা ছাত্র/ছাত্রীদের দৈনন্দিন পড়াশুনার অগ্রগতি সম্পর্কে অবহিত হওয়ার ব্যাপারে শিক্ষক অভিভাবকের মধ্যে যোগাযোগের সেতুবন্ধন রচনা করে থাকে। উল্লেখিত ত্রিমুখী সম্পর্কের উন্নয়ন ও দৈনিক পাঠবিবরণী পযবেক্ষণ পূর্বক শিক্ষার্থীর অভিভাবক/অভিভাবিকাবৃন্দ নিজ নিজ দায়িত্ব পালনে সচেষ্ট হবেন বলে আমাদের দৃঢ় বিশ্বাস। আমরা আপনাদের সন্তানের লেখাপড়া সংক্রান্ত যাবতীয় প্রয়োজনে উপযুক্ত সময়ে স্কুল কর্তৃপক্ষের সাথে ব্যক্তি যোগাযোগকে স্বাগত জানাই।কেননা শিক্ষাথী, শিক্ষক/ শিক্ষিকা ও অভিভাবকদের ঐকান্তিক প্রচেষ্টার ফলশ্রুতিতে আসে শিক্ষার্থীর সাফল্য। তাই প্রাতিষ্টানিক স্বার্থে সকলের সমন্বিত প্রচেষ্টা ও সুমহান দায়িত্ব পালনের মাধ্যমে এ কোমলমতি শিক্ষাথীর্দের সঠিকপথে পরিচালিত করে দেশ ও জাতিকে একটি সভ্য, সুশিক্ষিত ও দক্ষ মানবসম্পদ উপহার দেবার দৃঢ় শপথে অঙ্গীকারাবদ্ধ হই। সৃষ্টিকর্তা আমাদের সহায় হউন।